স্বামীর অসুখী হবার পেছনে স্ত্রীর বেশি উপার্জন দায়ী, ব্রিটিশ গবেষণায় দাবি

স্বামীর চেয়ে স্ত্রীর রোজগার বেশি হলে স্বামী মানসিক পীড়ায় ভোগেন। যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব বাথের একদল গবেষক সম্প্রতি এমন তথ্য জানিয়েছেন। প্রায় ৬ হাজার নারী–পুরুষের ওপর গবেষণা চালিয়ে এক অবাক করা তথ্য সামনে এনেছে।

গবেষণাটি বলছে, সংসার জীবনে অনেক সুখবর স্বামী-স্ত্রীর জন্য অশান্তি নিয়ে আসে। বিশেষ করে স্ত্রী বেশি উপার্জন করলে তা স্বামীর জন্য পীড়াদায়ক।

গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব স্ত্রীরা তার স্বামীর আয়ের উপর নির্ভরশীল সেই স্বামীরা মানসিকভাবে বেশি ভালো থাকেন। যেসব স্বামী তার স্ত্রীর চেয়ে কম আয় করেন তারা মানসিক কষ্টে ভোগেন।

সংসার জীবনে যারা ১৫ বছর পার করেছেন এমন ৬ হাজার দম্পতি নিয়ে গবেষণাটি করা হয়।

গবেষণায় দেখা গেছে, যে নারীরা স্বামীর চেয়ে কম আয় করেন এবং সংসারে আয়ের একটা অংশ খরচ করেন সেই সংসারের পুরুষরা মানসিক পীড়ায় কম ভোগেন।

গবেষণায় আরও উঠে এসেছে, স্বামীর চেয়ে স্ত্রীর আয় বেশি হলে সংসারে ক্ষমতা নিয়েও দর কষাকষি হয়। এই দর কষাকষি এমন একপর্যায় চলে যায় যে, এক সময় তারা বিচ্ছিন্ন হয়ে বিবাহ বিচ্ছেদের পথে হাঁটেন।

গবেষণায় অংশ নেয়া ইউনিভার্সিটি অব বাথ স্কুল অব ম্যানেজমেন্টের অর্থনীতিবিদ ডা. জোয়ানা সিরিদা বলেন, কম উপার্জনকারী স্বামীকে সমাজে হেয় ভাবে দেখা হয়,যা স্বামীর জন্য পীড়াদায়ক।

তিনি আরও জানান, কম আয় করা স্বামীরা সংসারে নিজেদের মূল্যহীন ও সামাজিকভাবে নিজেকে দুর্বল মনে করেন। এসব কারণে তারা সবসময় অস্থিরতা এবং হতাশায় ভোগেন। যা তার সার্বিক স্বাস্থ্যের উপর প্রভাব পড়ে।

সূত্র: মিডডেডটকম।

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *