কিভাবে পুরানো শাড়ি নতুন ভাবে ব্যাবহার করবেন, রইলো ১০ টি আইডিয়া

ফ্যাশন জগতটি দ্রুত পরিবর্তনশীল। আজ এটা ফ্যাশন ট্রেন্ড তো কাল ওটা। এসবের মধ্যে অনেকেই এমন রয়েছেন যাঁদরে স্টকে থাকা জমকালো ডিজাইনার শাড়িটা হয়তো আজ অনেক দিন ধরেই আলমারিতে পড়ে রয়েছে। হালফিলের ফ্যাশন ট্রেন্ডের সঙ্গে মানানসই নয় বলে হয়তো আর পরা হয় না। পুরনো শাড়ি ফেলে না দিয়ে বানিয়ে নিন একেবারে নতুনের মতো। কীভাবে? জেনে নিন।

১) শাড়ি দিয়ে বানান লং গ্রাউন

যদি আপনার কাছে পুরনো এক কালারের শাড়ি থাকে তাহলে তা দিয়ে বানিয়ে নিন প্রম গাউন বা ইভনিং ড্রেস। বিশ্বাস না হলে একটিবার ট্রাই করে দেখুন অবশ্যই। এটি আপনি নিজেই করতে পারেন দর্জির প্রয়োজন নেই।

২) শাড়ি দিয়ে বানিয়ে নিন পালাজো

প্রিন্টেড শাড়ি থেকে পালাজো বানানোর জন্য দর্জির কাছে মাপ দিয়ে কিংবা নিজেই বাড়িতে কাপড়ের অংশ কেটে নিন। পালাজোতে কতখানি ঘের থাকবে তার ওপর নির্ভর করেই শাড়ির অংশ কাটবেন। শাড়িতে যদি সুন্দর পাড় থাকে তাহলে তা কোমর এবং পায়ের কাছে সেলাই করে লাগিয়ে নিন। ক্রপ টপ বা কুর্তির সঙ্গে এটা দারুন মানাবে কিন্তু।

৩) শাড়ি দিয়ে বানান কাফতান

কাফতান পরতে আজকাল অনেকেই পছন্দ করেন। বাড়িতে পুরনো সুতির শাড়ি থাকলে তা ফেলে না দিয়ে সেটা ব্যবহার করে বানিয়ে নিতে পারেন কাফতান। তার সঙ্গে নিয়ে নিন একটা স্মার্ট বেল্ট, আপনি ক্যাসুয়াল লুকে রেডি।

৪) ওয়ান পিস ড্রেস বানান শাড়ি দিয়ে

শাড়ি দিয়ে তৈরি করতে পারেন ওয়ান পিস ড্রেস।এর জন্য কাটিং বা স্টিচিং-এর কোনও দরকার নেই। সহজ কিছু স্টেপ এবং প্লিট ফলো করলেই আপনার বাড়িতে থাকা পুরনো শাড়িই হয়ে উঠতে পারে ওয়ান পিস শর্ট ড্রেস।

৫) লেহেঙ্গা দিয়ে শাড়ি বানানো

ডিজাইনার লেহেঙ্গার পিছনে বাড়তি টাকা খরচ না করে, ডিজাইনার পুরনো শাড়ি থেকে সহজেই বানিয়ে নিতে পারেন লেহেঙ্গা। শাড়ির আঁচল দিয়ে লেহেঙ্গার ওড়না বানিয়ে নিন এবং শাড়ির কোমরের কাছে কুচির অংশ থেকে বানান লেহেঙ্গার স্কার্ট। দুটোই বানিয়ে নিতে পারেন।

৬) শাড়িই দিয়ে বানান লং স্কার্ট

ডিজাইনার লং স্কার্ট কিন্তু সবসময়ই ফ্যাশান ট্রেন্ডি। পুরনো ডিজাইনার শাড়ি থেকেই বানিয়ে নিতে পারেন লং স্কার্ট। প্রয়োজনে নীচের অংশে বা কোমরেও লাগিয়ে নিতে পারেন পার বা লেস। শাড়ি যদি ট্রান্সপারেন্ট হয়, সেক্ষেত্রে শাড়ির রঙের অতিরিক্ত কাপর ভেতর দিয়ে লাইলিন দিয়ে নিন। কোমরের কাছে লটকান ইচ্ছে হলে লাগিয়ে নিতে পারেন।

৭) শাড়ি দিয়ে বানানো ওভারকোট কিংবা জ্যাকেট

পুরনো ট্র্যাডিশনাল শাড়ি দিয়ে আপনারা হাফ জ্যাকেট, ওভারকোট ইত্যাদিও বানিয়ে নিতে পারেন। যা আপনারা জিনস পা স্কার্টের সঙ্গেও পেয়ার করে পরতে পারেন, এতে আপনার লুকে থাকবে স্মার্ট ইন্দো-ফিউশনের ছোঁয়া।

৮) পুরনো শাড়ি দিয়ে বানিয়ে ফেলুন জাম্পশ্যুট

জাম্পশ্যুট হালফিলের ফ্যাশনে অন্যতম। এই পোশাক আপনাকে একটা স্মার্ট এবং ক্যাসুয়াল লুক দিতে পারে। বাড়িতে বসেই কিংবা দর্জিকে দিয়েও বানিয়ে ফেলতে পারেন জাম্পশ্যুট। তবে জাম্পশ্যুটের হাতা ফুল রাখবেন না হাফ, নাকি স্লিভলেস সেটা আপনারা নিজের পছন্দসই বানিয়ে নেবেন।

৯) পুরনো শাড়ি থেকে শার্ট
আপনারা অনেকেই রয়েছে যাঁরা শর্ট বা লং শার্ট পরতে ভীষণ ভালবাসেন। জিন্স হোক বা স্কার্ট ডিজাইনার শার্ট সবসময় ট্রেন্ডি। আর যা তৈরি হতে পারে আপনার বাড়িতে পড়ে থাকা পুরনো ডিজাইনার শাড়ি দিয়েই। এর জন্য আপনি যদি বাড়িতে না পারেন তাহলে অবশ্যই দর্জির কাছে মাপ দিয়ে বানিয়ে নিতে পারেন।

১০) শাড়ি হতে পারে অসাধারণ টোট ব্যাগ বা পার্স বা বেল্ট
আজকাল শাড়িতেও ইন্দো ওয়েস্টার্ন লুক দেখা যায়। শাড়ির সঙ্গে কোমরে বেল্ট পরার একটা প্রবণতা রয়েছে। আপনার পুরনো শাড়ির পারটি যদি হয় চোখ ধাঁধানো তাহলে সেই পার কেটে নিয়ে বানিয়ে নিতে পারেন বেল্ট, যা আপনারা শাড়ি বা জাম্পশ্যুটের সঙ্গেও পরতে পারেন। এছাড়াও টোট ব্যাগ, বড় পার্স বা হ্যান্ডব্যাগ তৈরিতেও কাজে আসতে পারে আপনার আলমারিতে পড়ে থাকা পুরনো শাড়ি।

তথ্যসূত্রঃ দুরবাস

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *